চট্টগ্রামে অনলাইন প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য গ্রেপ্তার

0
263

চট্টগ্রাম মহানগরীতে অনলাইন জুয়া ও প্রতারণাকারী চক্রের ৫ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।


বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) দুপুরে এক প্রেস ব্রিফিং-এর মাধ্যমে গ্রেপ্তারের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য গণমাধ্যমকে জানানো হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন— মো. শাখাওয়াত হোসেন প্রকাশ শাওন (২০), মো. মনির আহমদ (৪০), মো. আরিফ উদ্দিন (৪০), ফয়সাল খাঁন (৩২), মো. জাবেদ মিয়া (৪০)। তাদের কাছ থেকে ১টি প্রাইভেটকার, ৩টি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ, ৫টি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোন, ১৮টি বিভিন্ন কোম্পানীর মোবাইল সিম, প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ১টি এইট পোর্ট মডেম, ২টি ব্যাংকের চেক বই, নগদ ২,২২,৫০০ টাকা জব্দ করা হয়।


চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি উত্তর) আসিফ মহিউদ্দীন জানান, অনলাইন জুয়ায় প্রতারণাকারী চক্রটি বাইনানি ডট কম, বাইনানি টুয়ান্টি ফোর ডট কম নামক ওয়েবসাইট এবং বাইনানিস, প্রোফি আইকিউ, বাইনানি গো এপস ব্যবহার করে সাধারণ জনগণ এবং উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েদের টাকা ‘অনলাইন জুয়া’ র মাধ্যমে প্রতারণা করে আত্মসাৎ করে আসছিলো। গোপন সূত্রে তথ্য পেয়ে নগরীর পৃথক পৃথক এলাকায় অভিযান চালিয়ে এদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এই চক্রের প্রধান মো. শাখাওয়াত হোসেন প্রকাশ শাওন (২০) পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জানান, সোশ্যাল অ্যাপস ‘টেলিগ্রাম’ এর বাইনানি গ্রুপে যুক্ত করে অজ্ঞাত ব্যক্তি তাকে বাইনানি ডটকম নামক ওয়েবসাইটে কাজ করার জন্য অফার করেন। তিনি তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক ও ইউটিউব চ্যানেলে লোভনীয় বিজ্ঞাপণ দিয়ে বাইনানি ডট কম, বাইনানি টুয়ান্টি ফোর ডটকম নামক ওয়েবসাইট এবং বাইনানিস, প্রোফি আইকিউ, বাইনানি গো এপস ব্যবহার করে সাধারণ জনগণ এবং উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েদেরকে ‘অনলাইন জুয়া’ খেলার জন্য আকৃষ্ট করেন। জুয়া খেলার জন্য তারা বিভিন্ন বিকাশ/রকেট/নগদ নম্বর ব্যবহার করতেন।


ওই বাইনানি ডটকম ওয়েবসাইটে লেনদেন করার জন্য তিনি বিকাশ/রকেট/নগদ এজেন্ট নম্বর প্রয়োজন হলে তিনি বিভিন্ন এজেন্ট/ডিস্ট্রিবিউশন হাউজের এস.আর/সুপারভাইজারদের নিকট হতে টাকার বিনিময়ে অবৈধ পন্থায় বিভিন্ন সময়ে অন্যের নামে রেজিস্ট্রেশন করা বিকাশ/নগদ/রকেট সিম সংগ্রহ করে ওই বিকাশ/নগদ/রকেট নম্বরগুলো ব্যবহার করতেন তিনি।


এছাড়া, সাধারণ জনগণ এবং উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েদের টাকা সংগ্রহ করে ডলারে কনভার্ট করে অজ্ঞাতনামা সহযোগীর মাধ্যমে বিটকয়েন এ রূপান্তর করে ইউক্রেনে আর্ট স্ট্রং নামক ব্যক্তির নিকট পাঠিয়ে আসছিলেন।


আসামিদের বিরুদ্ধে খুলশী থানায় নিয়মিত মামলা করা হয়েছে বলেও জানান গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার।

LEAVE A REPLY