ভাতিজিকে উত্যক্তের প্রতিবাদ, মেয়ের সামনে সাংবাদিককে হত্যা

0
197

ভারতের উত্তরপ্রদেশের সাংবাদিক বিক্রম জোশি। ভাতিজিকে যৌন হয়রানির ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। শেষমেশ সেই দুর্বৃত্তদের গুলিতেই নিজের মেয়েদের সামনেই খুন হতে হল তাঁকে। এ ঘটনায় গাফিলতির দায়ে দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করেছে পুলিশ প্রশাসন।

এনডিটিভি জানায়, বুধবার উত্তর প্রদেশের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ‍অবস্থায় গুরুতর আহত বিক্রমের মৃত্যু হয়। এর দুইদিন আগে সোমবার রাতে দিল্লির কাছে গাজিয়াবাদের বিজয় নগর এলাকায় বাড়ি ফেরার সময় দুই মেয়ের সামনেই বিক্রমের মাথা লক্ষ্য করে দুর্বৃত্তরা গুলি চালায়। পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তারা এখনও পর্যন্ত ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

এদিকে নিহতের পরিবারের অভিযোগ হামলার চারদিন আগে বিক্রমের ভাতিজার সাথে অশালীন আচরণের অভিযোগ ওঠে। এব্যাপারে স্থানীয় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বিক্রম। কিন্তু অভিযুক্তদের কাউকেই গ্রেফতার করেনি পুলিশ। বিক্রমের ভাই সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন, পুলিশ সময়মত তার ভাইয়ের অভিযোগ নিয়ে তদন্ত করতে ব্যর্থ হওয়ায় সেই সুযোগ কাজে লাগিয়েছে অভিযুক্তরা। তারা এই সময়ের মধ্যে আটক হলে প্রতিশোধ নিতে তার ভাইকে হত্যার পরিকল্পনা সাজাতে পারত না বলে দাবী করেন তিনি।

এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে জেলা পুলিশ প্রধান দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে বরাখস্ত করেন এবং বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দেন। বিক্রমের উপর হামলা এবং গুলির পুরো ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ পাওয়া গেছে। অনলাইনে ওই ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ার পর গোটা দেশের সাংবাদিক এবং বিক্রমের সহকর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, একদল লোক জোর করে বিক্রমের মটরসাইকেল থামিয়ে তাকে মারতে শুরু করে। এক পর্যায়ে তারা বিক্রমের ১১ ও ৫ বছর বয়সী দুই মেয়ের সামনে তাকে মাথায় গুলি করে। এসময় বিক্রমের বড় মেয়ে বাবার পাশে বসে সাহায্য চাইলেও কেউ এগিয়ে আসেনি।

সাংবাদিক মহল এবং বিরোধীদলের নেতারা এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

LEAVE A REPLY