বিলাসবহুল এয়ারবাস এ-৩৮০ উড়োজাহাজে কার্গো পরিবহন সেবা দিচ্ছে এমিরেটস

0
222

করোনা মহামারীকালে বিশ্বব্যাপী জরুরী সামগ্রী পরিবহনের জন্য বিলাসবহুল দ্বিতল এয়ারবাস এ-৩৮০ উড়োজাহাজের সাহায্যে চার্টার ভিত্তিতে সেবা প্রদান করছে এমিরেটস। এজন্য সর্বাধুনিক এই উড়োজাহাজগুলোকে মিনি ফ্রেইটারে রূপান্তরিত করা হয়েছে।

এমিরেটসের কার্গো পরিবহন শাখা- এমিরেটস স্কাইকার্গো করোনা মহামারীর সেকেন্ড ওয়েভের দরুন মেডিক্যাল সরঞ্জামসহ অন্যান্য অতি প্রয়োজনীয় সামগ্রী পরিবহনে সৃষ্ট বর্ধিত চাহিদার পরিপ্রোক্ষিতে এমন সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে।

এজাতীয় প্রথম ফ্লাইটটি ভায়া দুবাই সিউল ও আস্টারডামের মধ্যে মেডিক্যাল সামগ্রী পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত হয়।

এ-৩৮০ উড়োজাহাজের রিডিজাইনকৃত বেলিহোল্ডে প্রায় ৫০টন মালামাল পরিবহন করা সম্ভব। উড়োজাহাজগুলোকে আরো অধিক কার্গো পরিবহনের উপযোগী করা জন্য কাজ করে যাচ্ছে এমিরেটস স্কাইকার্গো। পুরো নভেম্বর মাসজুড়ে এই উড়োজাহাজগুলোর সাহায্যে চার্টার কার্গো ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা রয়েছে এয়ারলাইনটির।

এমিরেসট স্কাইকার্গো সাধারনত বোয়িং ৭৭৭ এফ এবং ৭৭৭-৩০০ ইআর উড়োজাহাজের সাহায্যে কার্গো পরিবহন সেবা প্রদান করে থাকে। ১৪টি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ইআর যাত্রীবাহী উড়োজাহাজের ইকোনমি শ্রেণি থেকে যাত্রী আসন সরিয়ে এগুলোকে কার্গো পরিবহনের উপযোগী করা হয়েছে। এমিরেটস স্কাইকার্গো বর্তমানে বিশ্বব্যাপী বিস্তৃত ১৩৫টি গন্তব্যে পরিচালিত সিডিউল ফ্লাইটের সাহায্যে কার্গো পরিবহন সেবা প্রদান করছে।

সমন্বিত বায়োমেট্রিক প্রযুক্তির মাধ্যমে এমিরেটস এয়ারলাইন দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাত্রীদের জন্য স্পর্শবিহীন সেবা প্রদান করছে। দুবাই আগমনকারী বা ভায়া দুবাই ভ্রমনকারীরা যাত্রীরা স্পর্শবিহীন পদ্ধতিতেই ফ্লাইট চেক-ইন, ইমিগ্রেশন আনুষ্ঠানিকতা, ফ্লাইট আরোহন, এমিরেটস লাউঞ্জে প্রবেশ ইত্যাদি সম্পন্ন করতে পারবেন।

এই সেবার আওতায় যাত্রীদের নিদিষ্ট পথ ধরে হেটে গেলেই চলবে, ব্যবহৃত হবে মুখমন্ডল ও চোখের আইরিশ রিকগনিশনের মতো সর্বাধুনিক বায়োমেট্রিক প্রযুক্তি। পদ্বতিটি ব্যবহারের ফলে ডকুমেন্ট পরীক্ষার এবং বিমানবন্দরে লাইনে দাঁড়ানো প্রয়োজনীয়তা কমে আসবে, স্বাস্থ্যবিধি অনুসরন ও মানবিক ইন্টারকেশন হ্রাস নিশ্চিত হবে।

বর্তমানে টার্মিনাল-৩ এর নিদিষ্ট কিছু প্রথম, বিজনেস ও ইকোনমি শ্রেনী চেক-ইন ডেস্ক, ‘স্মার্ট টানেল’সহ ইমিগ্রেশন গেট, কনকোর্স বি এর প্রিমিয়াম লাউঞ্জে প্রবেশসহ নির্দিষ্ট কিছু বোর্ডিং গেটে এই সেবা পাওয়া যাচ্ছে।

স্মার্ট টানেলের মধ্য দিয়ে হেটে গেলেই যাত্রীরা ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের ক্লিয়ারেন্স পাচ্ছেন এবং কোন মানবিক স্পর্শ ছাড়াই পাসপোর্ট স্ট্যাম্প করাতে পারছেন।

করোনা মহামারী প্রতিরোধে ইতোপুর্বে এমিরেটস সেলফ চেক-ইন ও ব্যাগ-ড্রপ কিউস্ক চালু করেছে।

LEAVE A REPLY