আংকারায় বঙ্গবন্ধু, ঢাকায় হবে কামাল আতাতুর্কের ভাস্কর্য

0
299

তুরস্কের রাজধানী আংকারায় বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় আধুনিক তুরস্ক প্রজাতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা কামাল আতাতুর্কের ভাস্কর্য স্থাপন করা হবে। দুই দেশের মধ্যেকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করতে বিভিন্ন উদ্যোগের মধ্যে রয়েছে ভাস্কর্য স্থাপনের উদ্যোগটি।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে বাংলাদেশে নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত মুস্তফা ওসমান তুরান এ তথ্য জানিয়েছেন। তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, তথ্যসচিব খাজা মিয়া ও মন্ত্রীর দফতরের কর্মকর্তারা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

তুরস্কের রাষ্ট্রদূত তুরান বলেন, ‘বন্ধুত্বপূর্ণ দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আশা করি আমরা মুজিববর্ষের সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবো। বঙ্গবন্ধু হচ্ছেন বাংলাদেশের প্রতীক, আর কামাল আতাতুর্ক হচ্ছেন তুরস্কের প্রতীক। এই দুই নেতার ভাস্কর্য দুই দেশে স্থাপন করব— এ বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আংকারায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এবং ঢাকার কামাল আতাতুর্ক এভিনিউয়ে কামাল আতাতুর্কের ভাস্কর্য স্থাপিত হবে। শিগগিরই এই কাজ শুরু করা হবে।’

রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকের পর তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে  ঐতিহাসিক সম্পর্ক এবং মূল্যবোধ ও সংস্কৃতির অনেক মিল রয়েছে। আগামী বছর আমাদের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে দুই দেশের মধ্যে সাংবাদিক প্রশিক্ষণ ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড বিনিময় নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। কোভিড পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে তিনি আসবেন বলে সম্মতিও দিয়েছেন। এছাড়া, তুরস্কের টেলিভিশন টিআরটি’র ইংরেজি চ্যানেলে মুজিববর্ষ উপলক্ষে অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হবে।

আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধু ও ঢাকায় কামাল আতাতুর্কের ভাস্কর্য স্থাপনের পাশাপাশি তুরস্কের বাণিজ্যিক রাজধানী ইস্তাম্বুল ও বাংলাদেশের বাণিজ্য নগরী চট্টগ্রামেও অনুরূপ কিছু করা যায় কি না, সেটি নিয়েও সৌজন্য সাক্ষাতে আলোচনা হয়েছে বলে জানান ড. হাছান।

LEAVE A REPLY