ভার্চুয়াল আদালত চলুক শুধু প্রয়োজনে, মত সংসদীয় কমিটির

0
157

করোনাভাইরাস মহামারীকালে প্রয়োজনের তাগিদে যে ভার্চুয়াল আদালতের যাত্রা শুরু হয়েছে, তা সবক্ষেত্রে চালু না করার সুপারিশ করেছে আইন ও বিচার মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় কমিটি।

সংসদে বিলটি আসার পর তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং আইন বিশেষজ্ঞদের মত নিয়ে এই সুপারিশ চূড়ান্ত করেছে সংসদীয় কমিটি।

রোববার সংসদীয় কমিটির বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি আবদুল মতিন খসরু বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “প্রয়োজনের তাগিদে এই আইনটি প্রয়োগ করার বিষয়ে সংসদীয় কমিটি সুপারিশ করেছে।

“ধরুন কোনো মহামারী হলো, জরুরি প্রয়োজন দেখা দিল, নিরাপত্তার প্রশ্ন উঠল- সেরকম পরিস্থিতিতে উচ্চ আদালত এ আইন প্রয়োগ করবে।”

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মতিন খসরু জানান, সংসদীয় কমিটির ডাকে সাড়া দিয়ে আইন কমিশনের চেয়ারম্যান সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এম আমীর-উল ইসলাম, আব্দুল বাসেত মজুমদার, ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনসহ কয়েকজন লিখিত মতামত পাঠিয়েছেন।

সোমবার বিলটি পাসের সুপারিশ করে প্রতিবেদন সংসদে উপস্থাপন করা হতে পারে বলে সংসদীয় কমিটির সদস্যরা আভাস দিয়েছেন।

সংসদীয় কমিটির বৈঠকে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, আব্দুল মজিদ খান, শহীদুজ্জামান সরকার, শামীম হায়দার পাটোয়ারী ও গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সচিব নরেন দাস, আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ার, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবরও উপস্থিত ছিলেন।

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সংসদীয় কমিটির বৈঠকে কমিটিার সদস্য আইনমন্ত্রী আনিসুল হক দেশে করোনাভাইরাসের কারনে উদ্ভূত বিশেষ পরিস্থিতিতে বিলটি উত্থাপনের প্রেক্ষাপট, বিলটি প্রয়োগের ক্ষেত্র, সীমাবদ্ধতা, বিশ্বের অন্যান্য দেশের সাথে এ বিলের সামঞ্জস্য ও প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করে বক্তব্য দেন।

সংসদীয় কমিটির এই বৈঠকের দিনই ঢাকা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে ভার্চুয়াল কোর্ট প্রতিষ্ঠার আইন না করার জন্য সংসদীয় কমিটিকে চিঠি দেওয়া হয়।

চিঠিতে বলা হয়, করোনাভাইরাস মহামারী ছড়ানো ঠেকাতে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে যেভাবে ভার্চুয়াল আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে তাতে দেশের ‘ঐতিহ্যবাহী’ বিচার ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।

LEAVE A REPLY