ডায়ানা অ্যাওয়ার্ড পেলেন চট্টগ্রামের ইউসুফ মুন্না

0
185

কিশোরদের সৃজনশীলতার বিকাশে বিশেষ অবদান রাখায় ডায়ানা অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হয়েছেন চট্টগ্রামের তরুণ ইউসুফ মুন্না; ব্রিটিশ যুবরাজ চার্লসের স্ত্রী প্রিন্সেস ডায়ানার স্মরণে এ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

ইউসুফ মুন্নার প্রতিষ্ঠিত কিশোরভিত্তিক সৃজনশীল প্ল্যাটফর্ম রিফ্লেকটিভ টিনস’র এর মাধ্যমে সামাজিক পরিবর্তনমূলক বিভিন্ন কার্যক্রমের জন্য তাকে এই স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। সোমবার (২৮ জুন) রাতে অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্তদের নাম ঘোষণা করা হয়, যেখানে ইউসুফ মুন্নাও আছেন।

ইউসুফকে পুরস্কার দেওয়ার কারণ হিসেবে ডায়ানা অ্যাওয়ার্ড কর্তৃপক্ষ বলেছে, তার প্রতিষ্ঠান রিফ্লেকটিভ টিনস বিগত আট বছর ধরে চট্টগ্রাম, খুলনা ও ঢাকা সহ বাংলাদেশের নানান প্রান্তের ৬১ হাজারেরও বেশি কিশোরের সৃজনশীল প্রতিভার বিকাশ এবং বিভিন্ন সৃষ্টিশীল কাজে সম্পৃক্ত করতে পেরেছে। তাদের প্রোগ্রাম গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ব্রিজেস নট বরডার্স, ব্রেইনারি এবং ক্রিয়েটর্স কনভারজেন্স।

তাকে এই পুরষ্কারের জন্য মনোনীত করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক অলাভজনক সংস্থা ‘অশোকা: ইনোভেটরস ফর দ্য পাবলিক’। তার এই অর্জন সম্পর্কে অশোকা ইয়াং চেঞ্জমেকার প্রোগ্রামের গ্লোবাল ডিরেক্টর ইয়াশভীর সিং জানান, ‘সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে ইউসুফের অবদান বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। তার প্রতিষ্ঠান রিফ্লেকটিভ টিনসের মাধ্যমে সে ইতিমধ্যে যে পরিবর্তনমূলক কাজগুলো করেছে তা’ই প্রমাণ করে তরুণদের অনেক কিছু করার ক্ষমতা আছে। তার কাজগুলো বিশ্বের তরুণদের জন্য ইতিবাচক দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। অশোকা তার নানান কার্যক্রমের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও গোটা বিশ্বে ইউসুফের মতো উদ্যমী তরুণদের সামাজিক কাজে উদ্বুদ্ধ করতে কাজ করে যাচ্ছে।’

ইউসুফ মুন্না বলেন, এই প্রাপ্তি আমাদের জন্য অনেক বড় অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে। একই সাথে, আমাদের কাজের গণ্ডিকে প্রসারিত করতে ও সামগ্রিক লক্ষ্যকে বাস্তবায়নে দলগত প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। এই পুরস্কার আমার একার নয়। আমাদের সকল বোর্ড মেম্বারগনের মূল্যবান পরামর্শ ও সবার দলগত প্রচেষ্টায় এই জায়গায় পৌঁছাতে পেরেছি বলে বিশ্বাস করি। তাই তাদেরকে এই পুরস্কার উৎসর্গ করছি’।

ইউসুফ মুন্নার বাড়ি চট্টগ্রামের মহেশখালীতে। বর্তমানে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগে স্নাতক করছেন। তিনি ২০১৫ সালে ‘টিইডিএক্স’ এ বক্তা হিসেবে আমন্ত্রিত হন। এছাড়াও ২০১৭ সালে প্রভাবশালী সামাজিক উদ্যোক্তাদের বৈশ্বিক নেটওয়ার্ক অশোকা ইয়াং চেঞ্জমেকারের অন্তর্ভুক্ত হন ইউসুফ। একই বছর সালে নেপালে অনুষ্ঠিত গ্লোকাল ইন্টারন্যাশনাল টিন কনফারেন্সেও আলোচক হিসেবে আমন্ত্রিত হয়েছিলেন তিনি। এছাড়া ভারতে অনুষ্ঠিত গ্লোবাল পার্টনারশীপ সামিট’১৭ ও ২০১৮ সালে ফিলিপিন্সে অনুষ্ঠিত অশোকা চেঞ্জমেকার এক্সচেঞ্জে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ইউসুফ দেশের প্রতিনিধিত্ব করেন।

বর্তমানে রিফ্লেকটিভ টিনসের পাশাপাশি, বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রক্রিয়ায় ছাত্রছাত্রীদের সহশিক্ষামূলক কার্যক্রমকে মূল্যায়নের মাধ্যমে প্রক্রিয়াটিকে আরও অন্তর্ভুক্তিমূলক করার জন্য #countECA নামের একটি ভার্চুয়াল মুভমেন্ট শুরু করেছেন ইউসুফ।

LEAVE A REPLY