জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হচ্ছে দুবাই মিউজিয়াম অব দ্যা ফিউচার

0
129

অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে দুবাইয়ের “মিউজিয়াম অব দ্যা ফিউচার” আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২২-জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে। ন্যাশনাল জিওগ্রাফি ম্যাগাজিন বলছে এটি পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর জাদুঘরের ১৪টির মধ্যে একটি। দুবাইয়ের নান্দনিক স্থান গুলির মধ্যে শেখ জায়েদ রোড একটি এবং যে কেউ শেখ জায়েদ রোড ধরে আসলে অতি সহজে সকলের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হবে “মিউজিয়াম অব দ্যা ফিউচার” নিঃসন্দেহে দেখা যাবে যে আরবি ক্যালিগ্রাফি সহ আকর্ষণীয় স্টিলের বিল্ডিং এর পুরোটা জুড়ে ডিজাইন করা হয়েছে এবং “মিউজিয়াম অব দ্যা ফিউচার” ডিজাইন করেছেন আমিরাতের আরবি ক্যালিগ্রাফি শিল্পী মাত্তার বিন লাহেজ।
দুবাইয়ের “মিউজিয়াম অব দ্যা ফিউচার” সাত তলা বিশিষ্ট উঁচু,৭৭ মিটার লম্বা এবং ৩০,০০০ বর্গ মিটার এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। বাইরের অংশটি ১৪,০০০ মিটার রাতে, ভবনের বাইরের অংশ এলইডি লাইটের মাধ্যমে আলোকিত হবে। ৪.০০০মেগাওয়াট সৌর শক্তি জাদুঘরটিকে শক্তি দেবে। বাইরে, জাদুঘরটি একটি অত্যাধুনিক এবং স্বয়ংক্রিয় সেচ ব্যবস্থার সাথে সজ্জিত ৮০ টি বিভিন্ন প্রজাতির গাছপালা সমন্বিত একটি চমৎকার পার্ক দ্বারা বেষ্টিত হয়েছে।”মিউজিয়াম অফ দ্য ফিউচার” দর্শনার্থীরা এআই,ভার্চুয়াল এবং অগমেন্টেড রিয়েলিটি এবং মানব-মেশিনের মিথস্ক্রিয়া গুলির মতো সর্বশেষ ডিজাইন এবং প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ভবিষ্যত প্রদর্শনের আশা করতে পারেন। গবেষণাগার সহ একটি গবেষণা কেন্দ্রও পাবেন। জনসাধারণের জন্য এটি খোলার আগে, দর্শনীয় কাঠামোটি তার অনন্য নকশা এবং অত্যাধুনিক উদ্ভাবনের জন্য প্রশংসা করা হয়েছিল,তাই এটি বলা যায় যে যাদুঘরটি নিরাপদ।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং দুবাইয়ের শাসক মহামান্য শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম কিছুক্ষন পূর্বে টুইট করে জানিয়েছেন যে জাদুঘরটি আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ তারিখে আনুষ্ঠানিক ভাবে জনসাধারণে র জন্য তার দরজা খুলে দেবে। তাঁর টুইটে,শেখ মোহাম্মদ ডাউন টাউন দুবাই কাঠামোকে “পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর ভবন” হিসাবে বর্ণনা করেছেন,তিনি আরো যোগ করেছেন যে জাদুঘরটি দুবাইয়ের জন্য একটি “ব্যতিক্রমী বছরের” অংশ হয়ে থাকবে।

এদিকে গত গ্রীষ্মে,”মিউজিয়াম অব দ্যা ফিউচার” ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক সংকলনে বিশ্বের সবচেয়ে ১৪টি সুন্দর জাদুঘরগুলির মধ্যে এটি একটি বলে স্বকৃতি দিয়েছিলো, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আফ্রিকান আমেরিকান ইতিহাস ও সংস্কৃতির জাতীয় যাদুঘর, গুগেনহেইম বিলবাও মিউজিয়ামের মতো অন্যান্য অত্যাশ্চর্য কাঠামোতে যোগ হয়েছে । স্পেনে, এবং ব্রাজিলের Museu de Arte do Rio.”মিউজিয়াম অব দ্যা ফিউচার” টিকিট দাম জন প্রতি ১৪৫ দেরহাম। ৩ বছরের কম বয়সী শিশু এবং ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সী আমিরাতি নাগরিকদের বিনামূল্যে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে। টিকিট ২০ ফেব্রুয়ারি রবিবার থেকে জাদুঘরের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইনে কেনা যাবে,এই সাইড থেকে ttps:// museumofthefuture.ae/en দর্শনের সময় সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত।

LEAVE A REPLY